আলমগীর কবির তিনটি ছড়া

মেঘ বন্ধু

ও মেঘ বন্ধু ও মেঘ বন্ধু
যাচ্ছো কোথায় ভেসে?
অনেক দূরের দেশে?

কি অভিমান? রোদের সাথে
আজ দিয়েছো আড়ি?
কোথায় তোমার বাড়ি?

মেঘ ডেকে কয় খোকন আমার
আকাশপুরে বাড়ি,

ভাসতে বড় ভালো লাগে
চড়ে হাওয়ার গাড়ি।

পাহাড় নদী বন বনানী
যাই দিয়ে যাই পাড়ি,

জলের কণা জমে জমে
শরীর হলে ভারি-

বৃষ্টি হয়ে ঝরে পড়ি
শহর- গাঁয়ে কোনো,

উপকারী বন্ধু হয়ে
পাশে থাকি শোনো-

ছুটি দিও

একটু করি দস্যিপনা
তাতে কেন রাগো?

শুক্রবারের দিন আমাকে
ছুটি দিও মাগো-

ছুটি দিও হাতে দিও
একটি পাতার বাঁশি,

মেঠোপথে ঘুরে আমার
ফুটবে মুখে হাসি।

ছুটি দিও সাথে দিও
একটি ঢাউস ঘুড়ি,

নভোচারীর মতো ঘুড়ি
উড়বে আকাশ জুড়ি।

ছুটি দিও মাগো আমায়
বৃষ্টি নামে যদি,

কলার ভেলায় পাড়ি দেব
বাড়ির পাশের নদী।

ভরদুপুরে

রোদ খেলে যায় লুকোচুরি
মেঘ দিয়ে যায় আড়ি,

কাজল কালো মেঘবালিকার
মুখ হয়েছে হাঁড়ি!

ঘর ছেড়ে আজ ভরদুপুরে
যাচ্ছে কত দূরে?

যেতে যেতে বৃষ্টি ঝরায়
টাপুর টুপুর সুরে।

বৃষ্টি পেয়ে মাঠ নদী বন
নতুন রূপে সাজে,

রঙিন ফুলের পাঁপড়ি হাসে
মিষ্টি কারুকাজে।

ভাবছি বসে ডানপিটে মেঘ
ফিরবে কখন বাড়ি?

নতুন গাঁয়ের ঠিকানাতে
আবার দেবে পাড়ি!

Leave a Reply

Your email address will not be published.