ইসলাম মুহাম্মদ তৌহিদের কবিতা

প্রেমিক ছিলে কবে

শাসাচ্ছ আজ? অথচ বলেছিলে সেবক হবে!
রপ্ত করেছ কূটকৌশল?
মিছে এ প্রণয় কি চেয়েছিলাম আমি?
নত শীরে থাকি কেন সেটাই চাও তুমি?
সুদ কষে চড়া, তোমার চোখ ছানাবড়া!
লক্ষ্মী তোমার পরকীয়ার প্রিয়া,
তাই বুঝি নিত্য ভাঙো সরস্বতীর হিয়া?
নাকি শুধুই নাটক ছিল সরস্বতী বন্দনা?
সোনালি ভোর ভুলে পানশালাতে পরকীয়া খেল?
মানুষ তুমি! নাকি লোভী পুরুষ বলো?
কেতাবি ঢং শুধুই তোমার মুখোশ!
তৌহিদী লেবাস মুখেই শুধু তোমার, স্বার্থে জপো বহু ঈশ্বরবাদ!
হিসেব তোমায় কাঠগড়াতে তোলে-
দস্যি লোলুপ পুরুষ তুমি, প্রেমিক ছিলে কবে?

কমার্শিয়াল প্রেম

আমি নগদ অর্থে প্রেম বেচি
মানুষ নয় অর্থ যাচি
যে দেবে ঢেরবেশি
তার সাথেই আমি আছি!
শুদ্ধ প্রেমের গল্প বলি রোজ
উদারতায় করি ভোজন ভোজ
আমার কাছে এটাই প্রেম আজ
অর্থ ছাড়া খুলবে না গো আমার প্রেমের ভাঁজ!

তোমাকে ফেরানো দায়

দিনশেষে পাখিরা নীড়ে ফেরে…
গোধূলির নতজানু সূর্যও ফিরে এসে দূর করে রাতের আঁধার।
আগুনের উত্তাপে বাষ্প হওয়া জলও চক্রাকারে ফিরে এসে আগুন নেভায়; অথচ তোমাকে ফেরানো দায়!
বুকের যে জায়গাটায় তুমি থাকো সেটা হৃদপিণ্ড-
আদর করে যাকে হৃদয় বলি, ভীষণ অবাধ্য এ হৃদয়!
সারাক্ষণ তোমার ভাবনার অসুখে অস্থির ভারী;
যদিও ব্যথা হলে বহু কষ্টে আমিই তা সারি,
সব জেনেও তুমি নির্লিপ্ত রাশভারি!
হিংস্র বাঘ-সিংহ-নেকড়েও পোষ মানে,
শুভাকাঙ্ক্ষীকে ঠিক চেনে; অথচ তোমাকে বোঝানো দায়!

Leave a Reply

Your email address will not be published.